1. admin@nayaalo.com : Ashrafhabib :
  2. nayaalo.com@gmail.com : News Desk : News Desk
ভৈরব কালিকা প্রসাদ ইউনিয়নে আপনাদের অবদানটা কি? - Nayaalo
শিরোনাম
ভৈরবে সরকারি ও কবরস্থানের গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ! ডিবি প্রধান হলেন কিশোরগঞ্জের মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। ভৈরব সরকারি চাকরিজীবী ঐক্য পরিষদের বার্ষিক সভায় পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত গোলাম মোস্তফা, নতুন সাধারণ সম্পাদক শফিউল্লাহ তপন ভৈরবে ইউনাইটেড হাসপাতালে নার্সের রহস্যজনক মৃত্যু,স্বজনদের দাবী পরিকল্পিত হত্যা! ইতালি প্রবাসী মোবারক হোসেনের পক্ষ থেকে ভৈরবে নগদ অর্থ প্রদান। বন্যার্তদের পাশে বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদ। ভৈরবে বিশ্ব রক্ত দাতা দিবসে র‌্যালী আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে পালিত। ভৈরব-কুলিয়ারচরে নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা ভৈরবে কেন্দ্রীয় যুব কমান্ড এর সভাপতি নজরুল বেপারীর জন্মদিন পালিত। ভৈরবে নানা আয়োজনে যায়যায়দিনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত।

ভৈরব কালিকা প্রসাদ ইউনিয়নে আপনাদের অবদানটা কি?

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২৯৮ জন দেখেছেন

ভৈরব কালিকা প্রসাদ ইউনিয়নে আপনাদের অবদানটা কি?বঙ্গবন্ধুর নৌকা কখনও ডুবেনা, কেউ ডুবাতে পারেনা।
৫ বছর পর পর যারা বসন্তের কোকিলের মত ইউপি নির্বাচনের মঞ্চে এসে বিরোধীপক্ষের গোষ্ঠী উদ্ধার করেন; আপনাদের বলি কালিকাপ্রসাদবাসীর জন্য আপনাদের অবদানটা কী? গত ৫ বছরে কালিকাপ্রসাদের জনগণের কার কী উপকার‍ করেছেন আপনারা? তাহলে কোন দাবী নিয়ে আসেন জনগণের সামনে?
অনেকদিন পর হাতে মাইক পেলে কি বলবেন না বলবেন খেই হারিয়ে ফেলেন। অনেক সময় দেখা যায় স্ববিরোধী বক্তব্যও দেন। এতদিন পর পর এসে একেক মঞ্চে উঠে একেকধরনের বক্তব্য যে দিয়ে যান ; এলাকাবাসীর কাছে আপনাদের গ্রহণযোগ্যতা টা কতটকু? এলাকাবাসী আপনাদের আগেও প্রত্যাখান করেছে, আগামীতেও করবে ইনশাআল্লাহ। আরেকটা কথা জেনে রাখুন স্থানীয় নির্বাচনে হারজিতের সাথে নৌকাডুবির কোন সম্পর্ক নেই। বঙ্গবন্ধুর নৌকা কখনও ডুবেনা, কেউ ডুবাতে পারেনা।

আপনারা যারা কালিকাপ্রসাদে তথাকথিত সুশীল হিসেবে পরিচিত তারা ১৯৯৮ সাল থেকে এই বাচ্চা ছেলেটার বিরোধীতা করছেন অথচ গত ২৩ বছরে চেয়ে দেখুন তো আপনাদের অর্জন টা কী, আর তার অর্জন টা কী? এই ২৩ বছরে একটা চারাগাছ থেকে সে আজ বটগাছের ন্যায় মহীরুহ। আর আপনাদের প্রয়োজন ফুরিয়ে এখন তলানীতে। হিংসে বিদ্বেষ দিয়ে এখন পর্যন্ত হারানো ছাড়া কিছু অর্জন করতে পারেন নি।

আপনারা নৌকার প্রার্থীর বিরোধীতা করার জন্য শত শত অযুহাত দেখাতে পারেন। কিন্তু নৌকার সাথে থাকার জন্য একটা কারণই যথেষ্ট। আর সেটা হচ্ছে নৌকা প্রতীক বঙ্গবন্ধুর মার্কা, শেখ হাসিনার মার্কা। এবার মাথায় মগজ থাকলে চিন্তা করুন আপনি/আপনারা কার বিরোধীতা করছেন?

এই যে ৫ বছর পর এসে মাইকে গলা ফাটিয়ে চলে যান এরপর কি কখনও আপনার নির্বাচিত প্রার্থী জনগণের সুখেদুঃখে ছিল কিনা কখনও খোজ নিয়েছেন? তাহলে জনগণ কেন আপনাদের ডাকে সাড়া দিবে? তারা জানে আপনারা সুশীল বসন্তের কোকিল। সিজন ছাড়া আপনাদের পাওয়া যায়না।

নৌকার প্রার্থী আপনার অপছন্দের হতেই পারে, কিন্তু মার্কাটা তো আপনার পছন্দের! তবে কেন বিরোধীতা? আপনি যদি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে থাকেন, তাহলে আপনি কখনই নৌকার বিরুদ্ধে যেতে পারেন না। বক্তব্য শেষে বলবেন জয় বঙ্গবন্ধু, আবার করবেন নৌকার বিরোধিতা! এ কেমন হিপোক্রেসি!
সংগ্রহ :ইমরান হোসাইন এর ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর...
© All rights reserved © 2022 নায়াআলো ডটকম
Developed By HM.SHAMSUDDIN