1. admin@nayaalo.com : Ashrafhabib :
  2. nayaalo.com@gmail.com : News Desk : News Desk
ভৈরবে প্রধানমন্ত্রী ও এমপি কে ধন্যবাদ জানিয়ে আনন্দ র‍্যালি ও মিষ্টি বিতরণ। - Nayaalo
শিরোনাম
ভৈরবে আওয়ামী যুবলীগের সম্মেলনে হামলা ভাংচুরের অভিযোগে পৌর যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক বহিষ্কার! ভৈরবে পথফুল ফাউন্ডেশনের ৫ম বর্ষপূর্তি উৎযাপন। সৌদি প্রবাসী ঐক্য পরিষদ, ভৈরব উপজেলা বি.এন.পি’র উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ। কাউন্সিল অব কনজিউমার রাইটস বাংলাদেশ (সিআরবি) মেলান্দহ হতদরিদ্রদের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরন ও পরিচিতি অনুষ্ঠান গোল্ডেন লাইফ ইন্সুরেন্সের উপদেষ্টা এম.তৌহিদুল আলম এর সাথে ভৈরব সার্ভিসিং সেলের কর্মকর্তাদের ২০২৩ইং সালের শুভেচ্ছা ও মতবিনিময়। কুলিয়ারচরে অলিভ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষে হতদরিদ্র বৃদ্ধ ও বৃদ্ধাদের মাঝে হাটার লাটি বিতরণ। নাগর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ, কালিকা প্রসাদ এর কার্যালয় উদ্বোধন ও পরিচিতি সভা। আসন্ন ঢাকা-১০ আসনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হয়ে জনগণের পাশে থাকতে চায় নজরুল বেপারী ভৈরবে ১০ বছরের সংসার জীবনে অবশেষে স্বামীর হাতে মৃত্যু!স্বামীসহ আটক ৩ জন।

ভৈরবে প্রধানমন্ত্রী ও এমপি কে ধন্যবাদ জানিয়ে আনন্দ র‍্যালি ও মিষ্টি বিতরণ।

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১
  • ৩০১ জন দেখেছেন

মোঃ ছাবির উদ্দিন রাজু, স্টাফ রিপোর্টার:

দীর্ঘ ৭৪ বছর পর বন্ধর নগরী ভৈরবের প্রাচীনতম বিদ্যাপীঠ হাজী আসমত কলেজ সরকারিকরণের অনুমোদন দেওয়ায় মাননীয় প্রধান মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছে আনন্দ র‌্যালি ও মিষ্টি বিতরন করা হয়েছে ।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে হাজী আসমত কলেজ শাখা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে একটি আনন্দ র‌্যালি কলেজ ক্যাম্পাস থেকে বের হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয় । পরে শির্ক্ষার্থীদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয় ।
জানাযায় ,স্বাধীনতার পর থেকে কলেজটি সরকারিকরণের জন্য ভৈরববাসি দাবি জানিয়ে আসছিলো।কিন্তু কোন সরকারের আমলেই দাবিটি বাস্তবায়ন হয়নি । ১৯৪৭ সালে ভারত-পাকিস্তান আলাদা হওয়ার পর পরই ভৈরবের পলতাকান্দা ( চন্ডিবের গ্রামের বিশিষ্ট দানবীর ও শিক্ষানুরাগী হাজী আসমত আলীর নামে কলেজটি ভৈরব বাজার কে,বি পাইলট হাইস্কুলের পাশে কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয় । তৎকালীন সময়ে কিশোরগঞ্জ,নরসিংদী,বি-বাড়ীয়াসহ বিভিন্ন জেলার একমাত্র বিদ্যাপীঠ ছিল এ কলেজটি । ওই সময় কলকাতা বিশ্ব-বিদ্যালয়ের অধীনে এ কলেজটি অধিভুক্ত ছিল । শিক্ষা বিস্তারে তৎকালীন সময়ে বাংলাদেশে যে কয়েকটি হাতে গোনা বিদ্যাপীঠ ছিল ।তন্মধ্যে এ কলেজটি ছিল অন্যতম । এ কলেজ থেকে বর্তমান মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো.আব্দুল হামিদ ও এ প্রতিষ্ঠানে পড়া-লেখা করেছেন । পরে ১৯৯৪ ইং সালে ভৈরব বাজার থেকে কলেজটি ভৈরবপুর উঃপাড়ায় শম্ভুপর সংলগ্ন ৪২বিঘা জমিতে স্থানান্তরিত করা হয় । বর্তমানে কলেজে ৩১ জন এমপিও ভুক্ত শিক্ষকসহ প্রায় ৪৭ জন কর্মকর্তা কর্মচারী রয়েছেন ।

কলেজটি সরকারিকরণের জন্য ভৈরববাসির দাবির প্রেক্ষিতে স্থানীয় সাংসদ ও বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় গত ২২ জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভৈরব হাজী আসমত কলেজকে সরকারি করণের অনুমোদন দিয়েছে । এ সংক্রান্ত একটি আদেশ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ও পরিচালক-৭ (প্রতিকল্প ) মোহাম্মদ রফিকুল আলম এবং স্থানীয় সাংসদ নাজমুল হাসান পাপন ,কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি,অধ্যক্ষ ও প্রধান মন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা ( মহাপরিচালক-২ ) এর বরাবরে অনুলিপি প্রদান করা হয়েছে ।

এ বিষয়ে ভৈরব উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো.সায়দুল্লাহ মিয়া জানান, মাননীয় এম.পি (সাংসদ) নাজমুল হাসান পাপনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় করোনাকালে ও মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা স্পেশাল ভাবে কলেজটিকে সরকারিকরণের অনুমোদন দেওয়ায় ভৈরববাসির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই । কলেজটি সরকারিকরণের জন্য ভৈরববাসির দীর্ঘদিনের দাবী পূরণ হতে চলেছে । কলেজটি সরকারিকরণে অত্র এলাকার ছেলে-মেয়েরা শিক্ষাক্ষেত্রে আরো একধাপ এগিয়ে যাবে এ বিষয়ে ভৈরব হাজী আসমত কলেজের প্রতিষ্ঠাতা হাজী আসম আলীর উত্তরাধিকার পৌরসভার মেয়র ইফতেখার হোসেন বেণু জানান,কলেজটি সরকারি করণে দীর্ঘদিন যাবৎ অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি । স্থানীয় সাংসদ নাজমুল হাসান পাপনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় মাননীয় প্রধান মন্ত্রী কলেজটি সরকারিকরণে অনুমোদন দিয়েছেন।এখন তাড়াতাড়ি এর বাস্তবায়ন চাই।সরকারিকরণের অনুমোদন দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী ও সাংসদ নাজমুল হাসান পাপন কে ভৈরববাসির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই ।

কলেজের উপাধ্যক্ষ ও অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আবদুর রউফ জানান, কলেজটি সরকারিকরণের জন্য দীর্ঘদিন ধরে ভৈরববাসি দাবী জানিয়ে আসছিলেন । কিন্তু কলেজটি প্রতিষ্ঠার পর দীর্ঘ ৭৪ বছর পর আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে দেশরত্ন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখহাসিনা সরকারিকরণের অনুমোদন দেওয়ায় শিক্ষা বিস্তারে অত্র এলাকার মানুষ আরো একধাপ এগিয়ে যাবে । কিন্তু সরকারিকরণ যেন তাড়াতাড়ি বাস্তাবায়ন হয় সে দাবি জানান তিনি ।তাছাড়া কলেজে সরকারি করণের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জন্য আবাসিক ভবন নির্মাণ, আইসিটি ভবনের জন্য প্রয়োজনীয় কম্পিউটার ও সরজ্ঞাম,শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে যানবাহনের ( বাস) দেওয়ার দাবি ও জানান ।

এ বিষয়ে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি লুবনা ফারজানা জানান,কলেজটি সরকারিকরণের জন্য প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিয়েছেন । এ সংক্রান্ত একটি চিঠি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে পেয়েছি।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর...
© All rights reserved © 2022 নায়াআলো ডটকম
Developed By HM.SHAMSUDDIN