1. admin@nayaalo.com : Ashrafhabib :
  2. nayaalo.com@gmail.com : News Desk : News Desk
পুলিশ হেফাজতে নরসিংদী নদীতে যুবকের মৃত্যু,হ্যান্ডকাপ পরা লাশ! - Nayaalo
শিরোনাম
ভৈরবে পথফুল ফাউন্ডেশনের ৫ম বর্ষপূর্তি উৎযাপন। সৌদি প্রবাসী ঐক্য পরিষদ, ভৈরব উপজেলা বি.এন.পি’র উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ। কাউন্সিল অব কনজিউমার রাইটস বাংলাদেশ (সিআরবি) মেলান্দহ হতদরিদ্রদের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরন ও পরিচিতি অনুষ্ঠান গোল্ডেন লাইফ ইন্সুরেন্সের উপদেষ্টা এম.তৌহিদুল আলম এর সাথে ভৈরব সার্ভিসিং সেলের কর্মকর্তাদের ২০২৩ইং সালের শুভেচ্ছা ও মতবিনিময়। কুলিয়ারচরে অলিভ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষে হতদরিদ্র বৃদ্ধ ও বৃদ্ধাদের মাঝে হাটার লাটি বিতরণ। নাগর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ, কালিকা প্রসাদ এর কার্যালয় উদ্বোধন ও পরিচিতি সভা। আসন্ন ঢাকা-১০ আসনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হয়ে জনগণের পাশে থাকতে চায় নজরুল বেপারী ভৈরবে ১০ বছরের সংসার জীবনে অবশেষে স্বামীর হাতে মৃত্যু!স্বামীসহ আটক ৩ জন। ভৈরবে নানা আয়োজনে মোহনা টিভির ১৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত ১১ নভেম্বর

পুলিশ হেফাজতে নরসিংদী নদীতে যুবকের মৃত্যু,হ্যান্ডকাপ পরা লাশ!

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১০ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৯৫ জন দেখেছেন

অনলাইন ডেস্ক:
নরসিংদীতে পুলিশ হেফাজতে সুজন সাহা নামে এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। হ্যান্ডকাপ পরা অবস্থায় হাঁড়িদোয়া নদী থেকে জাল ফেলে নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার সকালে শহরের হাজিপুরে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। নিহত সুজন সাহা (২২) হাজিপুর দাসপাড়া এলাকার অজিত সাহার ছেলে। তিনি শেকেরচরে একটি কাপড়ের দোকানে কাজ করতেন।

নিহতের স্বজনদের দাবি, গ্রেফতারের পর পুলিশ তাকে বেদম প্রহার করে। এতে তার মৃত্যু হলে হ্যান্ডকাপ পরা অবস্থায় তাকে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত সুজনকে গ্রেফতারের পর থানায় নেওয়ার সময় পথে সে হ্যান্ডকাপ অবস্থায় পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় নদীতে ঝাঁপ দেয়। এ ঘটনায় সদর মডেল থানার এসআই মোজাম্মেল ও কনস্টেবল মাইনুল আহত হয়েছেন।

নিহতের বাবা আজিত সাহা বলেন, সোমবার রাতে পুলিশ সুজনের খোঁজের তার বাসায় যায়। তখন দরজা খুলতে না চাইলে পুলিশ তালা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে তল্লাশি চালায়। পরে তাকে ফোন দিয়ে পুলিশের সঙ্গে দেখা করতে বলে। পরে মঙ্গলবার সকালে ব্রাক্ষন্দী থেকে তাকে ধরে হাজিপুর বাবুলের চানাচুর ফ্যাক্টরিতে নিয়ে আসা হয়। সেখানে তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে হত্যার পর তাকে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। পরে হাজিপুরের হাঁড়িদোয়া নদীতে জাল ফেলে তাকে উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, সুজনের বিরুদ্ধে একাধিক ওয়ারেন্ট রয়েছে। সেই ওয়ারেন্ট তামিল করতে তাকে হাজিপুরের চানাচুর ফ্যাক্টরি থেকে গ্রেফতার করা হয়। সেখান থেকে সুজনকে থানায় নেওয়ার পথে সে অতর্কিতভাবে পুলিশের ওপর হামলা চালায়।
নরসিংদী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান বলেন, সুজন একজন পেশাদার অপরাধী। তার বিরুদ্ধে চুরি, ডাকাতি ছিনতাই, মারামারিসহ ১০টি মামলা রয়েছে।

পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, থানায় নেওয়ার সময় সুজন পালাতে গিয়ে নদীতে ঝাঁপ দেয়। তখন সে নদীতে তলিয়ে যায়। সেখানে কোনো কিছুতে আটকে গিয়ে তার মৃত্যু হয়। তা ছাড়া পুলিশের হাত থেকে পালাতে গিয়ে সুজন সদর মডেল থানার এসআই মোজাম্মেল ও কনস্টেবল মাইনুলকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে। এতে দুই পুলিশ সদস্য আহত হন।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর...
© All rights reserved © 2022 নায়াআলো ডটকম
Developed By HM.SHAMSUDDIN